একবার ভুল করে এক ছাগল ফেসবুকে একটা একাউন্ট খুলে ফেলল। যেহেতু সে নতুন এবং ফ্রেন্ডলিস্টে তেমন কোন নারী ছাগল নাই তাই সে ঘাসের সাথে তার ঝকঝকে দাঁত বের করে একটা সেলফি প্রোফাইলে দিয়ে ছাগল জাতি নিয়ে একটা গভির ধ্যান ধারনার স্ট্যাটাস লিখে ফেললো।
ছাগলের স্ট্যাটাসঃ ব্যা… ব্যা ব্যা ব্যা … ব্যাএএএ……
একজন মানুষ সেখানে কমেন্ট করল, ঐ মিয়া এতো ব্যা ব্যা কর কেন? ভারতের দালাল নাকি? মুসলমান হইয়া ভারতের দালালগিরি করতে লজ্জা করেনা?
ছাগল বেশ ভয় পেয়ে গেল। সে সাথে সাথে স্ট্যাটাস মুছে দিল। কিছুখন চোখ বন্ধ কইরা সে বেশ খানিকখন চিন্তা করল। তারপর ভয়ে ভয়ে আরেকটা স্ট্যাটাস লিখল,
ছাগলের দ্বিতীয় স্ট্যাটাসঃ ম্যা…ম্যা,ম্যাএএএএ… ম্যা ।
একটা বিড়াল লাইক দিল। দুটো গাধা একে অপরের স্ট্যাটাস কপি করে লিখল, “অছাম ব্রো”।
যথারীতি একজন মানুষ হাজির। মানুষের কমেন্ট, এইযে ভাই। বাংলা ভাষার লোক হইয়া আপনি “ম্যা ম্যা” কইরা উর্দুতে কি বলেন? ছাগলের কাহিনী দেখছ, দেশপ্রেম বলতে নাই।
ছাগল এইবার বেশ ভালোই ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে গেল। স্ট্যাটাস মুছে দিল সাথে সাথেই। জন্মের পর থেকে যে দেশের ঘাস খেয়ে তার বেড়ে উঠা, যেদেশের মাঠে মাঠে সকাল দুপুর তার অবাধ বিচরণ, যে দেশকে সে প্রাণ দিয়ে ভালবাসে সে দেশ নিয়ে কিনা অপমান? তার দেশপ্রেমকে কিনা করে প্রশ্নবিদ্ধ?
ছাগল এইবার বাংলাদেশের অপার সৌন্দর্য নিয়ে একটা বিরাট স্ট্যাটাস লিখে পোস্ট করল।
অনেকে লাইক দিল, কেউ বলল ওয়াও, কেউ দিল “লাভ”।
খুশিতে যখন ছাগলের ডগমগ অবস্থা, তখন যথারীতি একজন মানুষ এসে হাজির।
সে লিখল, ভাই পাশের দেশে যখন আমার ভাইদের শরীর থেকে রক্ত ঝরছে সেখানে আপনি দেশপ্রেম নিয়া স্ট্যাটাস দেন? আপনার কি মানবতা বলে কিছু নাই? আর আপনি কোন দেশ নিয়া স্ট্যাটাস দেন? যারা আমার আপনার ভাইদের জন্য বর্ডার খোলে দিচ্ছেনা সে দেশের জন্য? আসুন আমার সাথে,অং সাং সূচি নোবেল ফেরত নিয়া আমারা এর প্রতিবাদ করি।

ছাগলের আনন্দ হাওয়ায় মিলাল। ছাগলের “মানবতা” কথাটা যদিও তার মাথায় কয়েকবার ঘুরপাক খেল। কিন্তু পরক্ষনেই তার নিরিহ রোহিঙ্গাদের জন্য মায়া লাগতে শুরু করল। আহারে বেচারারা, নিজ দেশে থেকেও পরাধীন। কুকুরের মত গুলি খেয়ে মরছে। নাহ এদের জন্য কিছু করা দরকার।
তাই সে এবার রোহিঙ্গাদের দুঃখ দুর্দশা নিয়া স্ট্যাটাস লিখতে বসল। লম্বা স্ট্যাটাস লিখে সে পোস্ট করল।
গাধা ঘোড়া, মুরগি ভেড়াদের অনেকেই না পড়েই লাইক দিয়ে গেল। এইবার একজন নয়, তিনজন মানুষ এসে কমেন্ট করলঃ
প্রথম মানুষঃ তোমার স্ট্যাটাসে হালকা ভারতের গন্ধ পাইলাম। যাহোক মুসলিমদের নিয়ে যেহেতু লেখছ সেহেতু তুমি ভারতের দালাল নও।
দ্বিতীয় একজন মানুষ এসে পোস্ট করলঃ ছাগলের বাচ্চা তোমারে আমি আগেই চিনতে পারছিলাম।তুমি একটা পাকিস্তানের এজেন্ট!!!
তৃতীয় মানুষ (শেয়ার দিয়ে লিখল)ঃ মায়ানমারে মুসলিম ভাইদের খুনের বদলা নিতে এই পোস্টে একটা লাইক না দিয়ে কেউ যাবেন না। লাইক অবশ্যই আমার পোস্টে দিবেন।

ছাগল তৎক্ষণাৎ তার ফেসবুক আইডি ডিএকটিভ করে মনের সুখে ঘাস চিবাইতে চিবাইতে ভাবল, “আজকালের ফেসবুকিয় মনুষত্বের চেয়ে ছাগলের “ছাগলত্ব” শ্রেয়।”।

ছবিসূত্রঃ Glasses Goat by Bobbi Bina

মতামত জানান