চকলেট! শুনলেই যে গাঢ় খয়েরি রঙ্গের উপাদেয় খাবারটির কথা মনে আসে, তা সম্পর্কে আমরা কতটুকু জানি? কেউ কেউ হয়তো বেশ ভালোই জানি। আবার কেউ কেউ হয়তো শুধু খেয়েই গেছেন, জানার কথা মাথায় আসেনি।
যারা এই কাতারে আছেন, চলুন এই মজাদার খাবারটি সম্পর্কে একটু জেনে আসি। আর যারা জানেন তারাও আরেকবার করে তথ্যগুলোয় চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন, কি বলেন? 

চকলেটের গন্ধ আমাদের মগজে “theta brain wave” এর আলোড়ন বাড়িয়ে তুলে, যা আমাদের মানুষিক প্রশান্তি দেয়।

সাদা চকলেট নামে বাজারে যে চকলেট পাওয়া যায় সেগুলো আসলে কোন চকলেটই নয়। কারণ ওগুলোতে কোন কোকোয়া থাকেনা।

প্রতি সেকেন্ডে শুধু আমেরিকাতেই ১০০ পাউন্ড চকলেট খাওয়া হয়।

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় চকলেট বারটির ওজন কত জানেন? ৫,৭৯২ কেজি।

প্রতিদিন ডার্ক চকলেট খেলে হৃদরোগের সম্ভাবনা এক-তৃতীয়াংশ পর্যন্ত কমে যায়।

কুকুরদের উপর চকলেটের ভয়ানক প্রভাব রয়েছে। চকলেট খেলে কুকুর অসুস্থ হয়ে মারা পর্যন্ত যেতে পারে।

জার্মান চকলেট কেক এর সাথে কিন্তু জার্মান এর কোন দুর-দুরান্তের সম্পর্ক নেই। এটির নামকরন করা হয় আমেরিকার স্যাম জার্মান এর নামে।

শুধু কুকুর নয়, চকলেট বিড়ালের জন্যও মারাত্মক রকম ক্ষতিকারক। সুতরাং আপনার পোষাপ্রাণীটিকে এর থেকে যত দুরে রাখা যায় তত মঙ্গল।

কফ সারাতে চকলেট কোডিনের চেয়েও উপকারী এমনটাই শুনা যায়।

একজন মানুষের জন্য একসাথে চকলেট খাওয়ার সর্বোচ্চসীমা ২২ পাউন্ড। এরচেয়ে বেশি খেলে অসুস্থ হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। সুতরাং খাওয়ার সময় সতর্ক থাকুন।

মতামত জানান