৩৫০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দে গ্রিক দার্শনিক অ্যারিষ্টটল লিখেছিলেন , ” আইনের শাসন যেকোন ব্যক্তি শাসনের চেয়ে ভাল”। নাগরিক বাধ্যতা, রাজনীতি, অর্থনীতি এবং সমাজের ভিত্তি নির্মাণ করতে ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যমে কার্জকরী করতেই আইনকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। কিন্তু কিছু আইন সৃষ্টি হয়েছে যা খুব পরিমাণ অদ্ভুত। এমন ১০টি অদ্ভুত আইন নিয়েই আজকের এই আর্টিক্যাল।

 

  • আপনি যদি কখনো সুইজারল্যান্ড যেতে চান তবে আপনার জন্য দুঃসংবাদ। আপনি  সুইজারল্যান্ডে কখনোই রাত দশটার পরে কমোড ফ্ল্যাশ করতে পারবেন না। সুইজারল্যান্ড সরকার রাত দশটার পরে ফ্ল্যাশ করাকে শব্দ দূষণ হিসেবে ধরে।
  • সাউথ কোরিয়া সরকার ১৬ বছর বয়সের নিচে কিশোরদের রাত ১২ টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত অনলাইন গেমস খেলা নিষিদ্ধ করেছে।
  • ২০১১ সালে ফ্রান্সে একটি আইন পাস হয়, যে আইনে বলা হয় খাবারের সাথে ফ্রিতে টমেটো কেচাপ দেয়া নিষেধ।
  • সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালানো সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ করা হয়েছিলো।
  • আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল এবং ফিলিপাইনের ব্যাংকে মোবাইল ফোন ব্যবহার সম্পূর্ণ অবৈধ।
  • আমেরিকার কলোরাডতে যৌক্তিক কোনো কারন না দেখিয়ে বৃষ্টির পানি সংগ্রহ করা এক ধরনের চুরি। প্রতারণা অথবা ছিনতাইয়ের পর্যায়েও পড়ে। আদালত এ ব্যাপারে বলেছেন, বৃষ্টির পানি এভাবে ধরে রাখলে কৃষিকাজের জন্য পানি পাওয়া যাবে না। অর্থনীতিতে খারাপ প্রভাব পড়বে।
  • ইংল্যান্ডের আদালত নব্বই এর দশকে রাজ হাঁস খাওয়া অবৈধ ঘোষণা করেছিলো।
  • সিঙ্গাপুরে চুইংগাম নিষিদ্ধ। কেউ প্রকাশ্যে চুইংগাম খেলে তাঁর জেল জরিমানা অবশ্যই হবে।
  • অষ্ট্রেলিয়াতে দক্ষ ইলেক্ট্রিশিয়ান ছাড়া নষ্ট বাতিও পালটানো যাবে না। কেউ এটা করা মানে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
  • ইতালি, ফ্রান্স, নরওয়ে এবং স্পেনের কিছু শহরে মারা যাওয়া অপরাধ।

মতামত জানান