ভাবুন তো সংবাদহীন একটা দিনের কথা। যে দিন আপনি টিভি খুলে দেখলেন ২৪ ঘন্টা সংবাদ দিয়ে আপটুডেট রাখা চ্যানেলে আজ কোন খবর নেই। আপনি একের পর এক চ্যানেল পরিবর্তন করছেন কিন্তু কোথাও কোন খবর নেই। ব্রেকিং নিউজ এর কাড়াকাড়ি যেখানে সর্বত্র – গুজব থেকে সঠিক সংবাদ আলাদা করতে যেখানে বেগ পেতে হয় সেখানে খবরহীন একটি দিন।

ভেবেও হয়তো হাসি পাচ্ছে – এ কি করে সম্ভব! কিন্তু এমন একটি দিনের স্বাক্ষী হয়েছিলো পৃথিবী ১৯৩০ সালের ১৮ ই এপ্রিল। ১৯৩০ সালের ১৮ এপ্রিল ছিলো গুড ফ্রাইডে। তখন রেডিও আর সংবাদপত্র ই ছিলো সংবাদপ্রাপ্তির একমাত্র মাধ্যম। রেডিও বলতে ওই বিবিসি ই। ১৮ এপ্রিল সন্ধ্যা ৬.৩০ টা, নিউজ বুলেটিনে উপস্থাপক বলেছিলেন,

“Good evening. Today is Good Friday. There is no news”

এরপর ১৫ মিনিটের নিউজস্লট এর পুরোটা জুড়েই বেজেছিলো পিয়ানোর সুর।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতেই দিনটি ইতিহাসের পাতায় স্থান করে নিয়েছে খবরহীন দিন হিসেবে।

গুড ফ্রাইডের দিন অর্থাৎ ১৮ এপ্রিল সব খবরের কাগজ বন্ধ থাকবে। তাই রেডিওই খবর এ একমাত্র ভরসা ছিল। সে কারণেই ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় এর এক কর্তার সাক্ষাৎকার তৈরি রাখতে চেয়েছিল বিবিসি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, শেষ মুহূর্তে তা দিতে রাজি হননি ব্রিটেনের প্রশাসনিক কর্তারা। অর্থাৎ গুড ফ্রাইডে-র দিন বিবিসি-র কাছে শ্রোতাদের জন্য কোনও খবর তৈরি ছিলো না।

তাই বিবিসি রেডিও-র শ্রোতাদের সেদিন শুনতে হয়, ‘আজ কোনও খবর নেই’। এবং এরপরই শুরু হয়ে যায় পিয়ানোর সুর। সেই দিন কিছু ঘটলেও তা সকলের অজানাই থেকে যাবে চিরদিন কারণ সে দিনের সংবাদ প্রাপ্তির একমাত্র মাধ্যম বিবিসি জানিয়েছিলো আজ কোন খবর নেই।

মতামত জানান