চম্পাবতী

ধারাবাহিক সুন্দরবনের উপকথা - 1 পর্ব (1)

রাজপুরীর মাঝেই মন্দির, ভিতর থেকে দরজা আটা । চম্পাবতী তাপসী কুমারী । সে দেবীর আরাধনা শেষে রাতে মন্দিরেই ঘুমায় । অনেক বেলা হলো, চম্পাবতী এখনো মন্দিরের দ্বার খোলে নি। “চম্পা, চম্পা!’ লীলাবতী বেশ কয়েকবার মন্দিরের দরজা টোকা দিলেন। কিন্তু মেয়ের … Continue reading চম্পাবতী

নিঝুমপুরের কাকতাড়ুয়া

দুপুরবেলা বাবলু যখন বের হচ্ছিল তখনই দারোয়ানটা বাধা দিয়ে বলে, এই সুনসান দুফুরে কই যাইতাছেন?  দুফুরে মান দুপুরে সেটা জানে বাবলু। দারোয়ান লোকটা বেশ সহজ সরল। মাথা ভর্তি কলমি শাকের মত ঝাঁকরা চুল। মুখটা তোম্বা ধরনের, অনেকটা পেঁপের মত। নাকটা … Continue reading নিঝুমপুরের কাকতাড়ুয়া

ক্ষুদে তিমি শিকারী

আমি যে শহরটাতে ছোট বেলায় থাকতাম সেটা ছিল ভারি নিঝুম এক শহর। তত বেশি দালানবাড়ি ছিল না। বেশ ফাঁকাফাঁকা। অনেক বেশি ঝোপঝাড় আর গাছপালা ভর্তি। আকন্দ, বনজুঁই, বনতেজপাতা, আসাম লতা, দল কলস আর শেয়ালকাঁটার ঝোপে গিজগিজ করত চারিদিক। একটা আতা … Continue reading ক্ষুদে তিমি শিকারী

বাড়ির উপর বাড়াবাড়ি

কলকাতার বাইরে কোথাও হাওয়াবদলে যাবার তোড়জোড় হচ্ছিল। বোঁচকাবচকি  বাঁধা বিছানাপত্র ঠিকঠাক, সব কিছুর গোছগাছ করছিলেন গিন্নি। গোবর্ধন ছিলো তদারকিতে। একজন কী বলেছেন তা জানিস? মুখ খুললেন হর্ষবর্ধন, ‘হাওয়া- বদলের আসল কথাটা হলো খাওয়াবদল | তামাম মুল্পঃকেই তো এক হাওয়া ! হাওয়া … Continue reading বাড়ির উপর বাড়াবাড়ি

ভয়ের জ্যামিতি

ভয়ের জ্যামিতি বড় অদ্ভুত। কোনো সূত্রই মানেনা। নিজেকেই প্রশ্ন করুননা,‌কী দেখলে আপনি ভয় পেতে পারেন? গভীর রাতে ঘুম ভেঙ্গে গেল আপনার।কামরাতে আপনি একা।পুরো বাড়ি ফাঁকা।কেউ নেই।বাইরে জোছনার রাত।তরল সোনার মত জোছনা।হঠাত দেখলেন জানালার পাশে দাঁড়িয়ে আছে ভয়াল এক মূর্তি।চোখ দুটো … Continue reading ভয়ের জ্যামিতি

বাংলোর রহস্য

নির্জন বাংলোটায় ঢুকেই শির শির করে উঠল আসিফের শরীর। পুরনো পুরনো একটা গন্ধ সর্বত্র। চারদিকে দেখলেই বুঝা যায় বহুদিনের পড়ে থাকা বাংলোটা পরিষ্কার করার কোন ত্রুটি করেনি কর্মচারীরা। তাও এর গায়ে পুরনো পুরনো ভাবটা  থেকেই গেছে। আসিফ। ছোট্ট একটা কাজে … Continue reading বাংলোর রহস্য

স্বয়ংবরা

ধারাবাহিক চাচা কাহিনী - 1 পর্ব (1)

বার্লিনের বড় রাস্তা কুরফুর্সটেম যেখানে উলান্ডট্রাসের সঙ্গে মিশেছে, সেখান থেকে উলান্ত্ট্রাসে উজিয়ে দু-তিনখানা বাড়ি ছাড়ার পরই Hidusthan haus অর্থাৎ Hidusthan house) অর্থাৎ ‘ভারতীয় ভবন’। আসলে রেস্তোরা, দা-ঠাকুরের হোটেল বললেই ঠিক হয়। জর্মনি শুয়োরের দেশ, অর্থাৎ জর্মনির প্রধান খাদ্য শূকর মাংস। … Continue reading স্বয়ংবরা

মায়া তোরঙ

ধারাবাহিক রুপকথার গল্প - 7 পর্ব (7)

অনে-ক দিন আগে। এক দেশে ছিল এক সওদাগর | সওদাগরের ধন-রত্নের শুমার নেই, টাকা পয়সার গোণাগুনতি নেই। রুপোর টাকায় মস্তো একটা রাস্তা আগা-পাছতলা বাধিয়ে দেয়া যায়, তবুও সে টাকা ফুরোবে না__ এত টাকা সেই সওদাগরের। কিন্তু তাই কি করে নাকি … Continue reading মায়া তোরঙ

ছোট্ট জলকন্যা

ধারাবাহিক রুপকথার গল্প - 6 পর্ব (7)

মস্ত বড়ো সমুদ্বের মধ্যে অনেক, অনেক দূরে জল যেখানে অপরাজিতার মতো নীল আর স্কটিকের মতো স্বচ্ছ, যেখানটা এতই গভীর যে হাজারটি উচু-চুড়া মন্দির পর-পর সা্জালে তবে উপর থেকে একেবারে তলায় গিয়ে ঠেকে__সেখানে সাগর রাজার দেশ। তোমরা বুঝি ভেবেছিলে জলের নিচে … Continue reading ছোট্ট জলকন্যা